রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৫১ অপরাহ্ন

আজ ভয়াল একুশে আগস্ট

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০

আজ ভয়াল সেই ২১ আগস্ট। ২০০৪ সালের এই দিনে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের জনসভায় ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা ও হত্যাযজ্ঞ চালানো হয়। নারকীয় এই হামলায় প্রাণ হারান দলের ২৪ জন নেতাকর্মী। অল্পের জন্য বেঁচে গেলেও আহত হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ দলের ৩ শতাধিক নেতাকর্মী।

২১শে আগস্ট নেতাকর্মীদের মানবঢালে বেঁচে যান তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৬ বছর আগে সেই হামলায় প্রাণ হারান মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী। আহতদের অনেকে চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তার আর স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেননি।

সেই দিনে বিএমপি-জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় ছিল। ২০০৪ এর ৭ই আগস্ট সিলেটে বোমা হামলার প্রতিবাদে ও তার বিচার চেয়ে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে সন্ত্রাষবিরোধী সমাবেশের ডাক দেয় তৎকালীন বিরোধী দল আওয়ামী লীগ। এতে প্রধান অতিধি হিসেবে ছিলেন দলীয় সভাপতি বিরোধী দলীয় নেতা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে অবস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পশ্চিমমুখী করে ট্রাকের ওপর করা হয়েছিল সমাবেশের মঞ্চ। সমাবেশ স্থল ছিল লোকে লোকারণ্য। ঘড়িতে তখন ঠিক বিকাল ৫টা ২২ মিনিট। জনসভা প্রায় শেষের দিকে। বক্তব্য রাখছিলেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। আর তখনই ঠিক সমাবেশ মঞ্চকে লক্ষ্য করে চালানো হয়ে উপর্যুপুরি গ্রেনেড হামলা।

মঞ্চের চারদিক থেকে নিক্ষেপ করা হয়ে একের পর এক গ্রেনেড। মাত্র দেড় মিনিটে পর পর বিস্ফোরণ হয় ১১টি শক্তিশালী গ্রেনেড। এই হামলায় মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইভি রহমান, শেখ হাসিনার দেহ রক্ষী মাহবুবসহ একে একে প্রাণ হারান ২৪ জন ব্যক্তি। পাশে ছোঁড়া গ্রেনেড বিস্ফোরণ না হওয়া ও নেতাকর্মীরা মানববর্ম তৈরি করায় অল্পের জন্য বেঁচে যান হামলার মূল টার্গেট আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। তবে আহত হন তিনি সহ দলের ৩শর বেশি নেতাকর্মী।

আরও পড়ুন: বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ঘোষণা ডেমোক্র্যাটদের

এই ভয়াবহ ঘটনার পর সেই সময় তড়িঘড়ি করে জজ মিয়া নাটকের মাধ্যমে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। পরবর্তীতে আওয়ামী লীঘ ক্ষমতায় এসে মামলার গতি ফিরিয়ে আনেন শেখ হাসিনা সরকার। এই ঘটনায় করা দুইটি মামলায় সাবেক তৎকালীন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর সহ ১৯ জনকে মৃত্যুদন্ড দেন মাননীয় আদালত। সূত্র: সময় / চেনেল ২৪

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102