শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩০ অপরাহ্ন

এডসেন্স লো cpc. নিয়ে চিন্তিত? সমস্ত সমাধান এই পোস্টের মাধ্যমে!!

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৮ আগস্ট, ২০২০

আপনি যদি কখনও কাউকে বলেন অনলাইন থেকে আয় করার সবচেয়ে ভালো উপায় কোনটি?

তখন সে আপনার প্রশ্নের জবাবে নিশ্চয়ই বলবে। কেনো একটি ওয়েবসাইট তৈরী করবো এবং সারাজীবন আয় করবো।

আপনি এই কথাটায় কিছুটা হলেও উদ্বিগ্ন হতে পারেন এবং আপনি পরে আবারও প্রশ্ন করতে পারেন- ওয়েবসাইট থেকে আবার কিভাবে টাকা আয় করবো?

কারন ওয়েবসাইট তোহ আর এমনি এমনি টাকা দিবে নাহ। তখন সে হয়তো আবারও আপনার প্রশ্নের জবাবে বলবে- কেনো আমি কয়েকটা ভালো মানের পোষ্ট লিখবো।

এবং তারপর গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবো তারপর যখন এটা এপরোভাল হয়ে যাবে তখন এড দেখিয়ে অনেক ডলার আয় করতে পারবো।

কথাটা আসলে একদম ঠিক। যেকোন ভালো ওয়েবসাইটে এড দেখিয়ে অনেক ভালো পরিমান ডলার আয় করা যায়। তবে সেটা এডসেন্স এপরোভালের চেয়েও বেশি কঠিন।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে কেনো?

তাহলে শোনেন – আপনার ওয়েবসাইটে এড দেখিয়ে আয় করার জন্য এডসেন্স হলো সর্বোত্তম উপায়। তবে এডসেন্স দিয়ে ডলার আয় করার সময় এর অনেকটা বিষয় লক্ষ রাখতে হয়।

যার মধ্যে একটি হলো ঃ (CPC) Cost Per Click. যার মানে হলো আপনার ওয়েবসাইটে দেখানো এড ইউনিটে প্রতিটা ক্লিকে আপনি কত ডলার আয় করতো সক্ষম হবেন।

যদি আপনার এডসেন্স এর (CPC) হয় 0.20$ তাহলে আপনি ১$ আয় করতে হলে ৫ টি ক্লিক পেতে হবে।

তবে লক্ষ করলে দেখা যায় অনেক এডসেন্স এর (CPC) অনেক সময় ০.২$- ০.৫$ অর্থাৎ অনেক কম থাকে। যার কারনে মাত্র ১$ আয় করতে হলে অনেক ক্লিকের প্রয়োজন হয়।

আপনি হয়তো এই বিষয়টি নিয়ে অনেক চিন্তিত আছেন যে কিভাবে আপনার এডসেন্স এর (CPC) বৃদ্ধি করবেন। তাহলে আমি আপনাকে বলবো চিন্তার কোন কারন নেই।

কারন আজকের এই পোষ্টে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো কিভাবে আপনি আপনার এডসেন্স এর (CPC) ইনক্রিজ করবেন। ( Boost Your Revenue)

(CPC) এর উপর নির্ভর করে আপনার সম্পুর্ণ আয় করার ভবিষ্যত। কারন আপনার (CPC) যতো বেশি হবে আপনার ইনকাম ঠিক ততটাই ফাস্ট হবে।

আসলে এডসেন্স এর (CPC) বাড়ানোর অনেকগুলো পন্থা আছে তবে আজ আমি কিছু পন্থা তুলে ধরবো যাহ আপনার এডসেন্স এর (CPC) বৃদ্ধি করতে অনেক ভুমিকা পালন করবে।

১.Ad Unit Size:-

এড ইউনিটের অনেকগুলো সফল সাইজ আছে যেই সাইজগুলো ব্যবহার করলে আপনার এডসেন্স এর (CPC) অনেক টা বেড়ে যাবে।

তার মানে হলো যদি আপনার এডসেন্স এর (CPC) হয় ০.৫$ এর নিচে তাহলে এটা এসে দাড়াবে ০.১০$ এর উপরে। (গ্যারান্টি আমি দিলাম)

অ্যাডসেন্স এর CPC অনেক অনেকাংশে বিজ্ঞাপণের সংখ্যা এবং বসানোর যায়গার উপর নির্ভর করে। যেমন পোস্ট এর শিরোনামের ঠিক নিয়ে বসানো বিজ্ঞাপনের CPC অন্যান্য যায়গার তুলনায় বেশি।

অর্থাৎ আপনি যদি পোষ্ট শিরোনামের ঠিক নিচে যদি আপনি এড বসান তাহলে অন্যান্য এড ইউনিটের চেয়ে ভালো মানের CPC পাওয়া যাবে।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে কোন এড ইউনিট পোষ্টের শুরুতে এবং শেষে বসানো উচিত?

তাহলে আমি আপনাকে বলবো পোস্টের শুরুতে এবং শেষে Large Rectangle 336 x 280 বিজ্ঞাপন ইউনিট বসাতে পারেন।

কারন এই ফরম্যাট টির CTR(Click Through Rate) সবচাইতে বেশি আর আয়ও ভালো আসে।

তাছাড়া এই সাইজের এড ইউনিটের CTR তুলনামুলক অনেক বেশি এবং এতে আয় আরো ভালো হবে।

তাছাড়া সাইটের পেজে সর্বোচ্চ ৩ টা বিজ্ঞাপন ইউনিট ব্যবহার করবেন কারন অধিক বিজ্ঞাপন ইউনিট ব্যবহার করলে CTR(Click Through Rate) কমে যায় (পরীক্ষিত)।

নিচে অ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপন ফরম্যাটগুলোর সম্ভাব্য CTR(Click Through Rate) গুলো দেখানো হলঃ

কিইওয়ার্ড রিসার্চঃ-

আপনারা হয়তো জানেন যে প্রতিটি কিওয়ার্ড বা ফ্রেজের জন্য অ্যাডসেন্স এর এপ্রোক্স একটা রেট আছে যাকে CPC(Cost Per Click) বলে যা মূলত গুগলকে এডভার্টাইজারদের পে করতে হয়।

ভালো ব্লগাররা প্রতিটা পোষ্ট করার আগেই ইউজারের চাহিদা, ইণ্টেনশন এবং সে অনুযায়ী কিওয়ার্ড বাছাই এর সাথে সাথে ওই কিওয়ার্ডে কন্টেন্ট ডেভেলপমেন্ট করলে কেমন পরিমাণ আয় করা সম্ভব সেগুলো ভেবে নেয়।

কথাটার মুলমন্ত্র হলো ভালো CPC যুক্ত কিইওয়ার্ড নির্বাচন করা। অর্থাৎ আপনি যখন যেকোন পোষ্ট লিখতে বসবেন তখন আপনার জন্য প্রথম এবং প্রধান কাজ হবে হাই CPC যুক্ত কিইওয়ার্ড নির্বাচন করা।

যার কারনে আপনি যখনই একটি আর্টিকেল লিখতে বসবেন এর আগে আপনাকে অবশ্যই একটি হাই CPC যুক্ত কিইওয়ার্ড খুজে বের করতে হবে। যার ফলে আপনি প্রতিটি ক্লিকে অনেক ডলার আয় করতে পারবেন।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে কিভাবে কিইওয়ার্ড রিসার্চ করবো?

এর জন্য যেমন পেইড টুলস আছে যেগুলো ব্যবহার করলে আপনাকে ডলার পে করতে হবে তেমনি আপনি অনেক ফ্রি টুলসও পাবেন। যেই টুলসগুলো অনেক ভালো কাজ করে।

এর জন্য আপনি Adwords Keyword Tool ব্যবহার করতে পারেন। এটি ফ্রি টুলস কিইওয়ার্ড রিসার্চের জন্য।

কিওয়ার্ড রিসার্স করে লিখলে ভিজিটরের সংখ্যাও বেড়ে যায়, ভিজিটর বাড়া মানে ক্লিক পরার চান্সও বেড়ে যাওয়া।

সুতরাং টার্গেটেড কিওয়ার্ড বেসড করে পোষ্ট লিখুন দেখবেন অ্যাডসেন্স রেভিনিউ দ্রুত গতিতে বেড়ে যাচ্ছে।

অরিজিনাল ও কোয়ালিটি কন্টেন্ট লেখাঃ

আমরা অনেকেই এই যায়গাতে ভুল করে বসি। অর্থাৎ অন্য আরেকজনের কনটেন্ট চুরি করে আমাদের ওয়েবসাইটে বসিয়ে দেই। যাহ অত্যন্ত খারাপ কাজ।

আমরা অনেকেই ভুলে যাই এডসেন্স এর শর্তগুলোকে। যেগুলো মেনে চললে ভালো আয় করা সম্ভব হয়।

অ্যাডসেন্স থেকে ভালো আয় করার প্রথম শর্তই হচ্ছে ভিজিটরের চাহিদা মাফিক আরিজিনাল এবং কোয়ালিটি সম্পন্ন কন্টেন্ট নিয়মিত ওয়েবসাইটে পাবলিশ করা।

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে এডসেন্স এর সিপিসি বৃদ্বির জন্য হাই কোয়ালিটি কনটেন্ট এর কি দরকার😒?

এটা খুবই ভালো একটি প্রশ্ন। আপনি যদি ভালো এবং হাই কোয়ালিটি অরিজিনাল কনটেন্ট লিখেন তাহলে হাইপেয়িং বিজ্ঞাপনদাতাদের এডস আসে, যারা ক্লিকের জন্য বেশ ভালো সিপিসি দিতে আগ্রহী থাকে।

অর্থাৎ এখন সিদ্বান্ত আপনি নেন!

আপনি যদি ভালো এবং অরিজিনাল হাই কোয়ালিটি কনটেন্ট লিখেন তাহলে আপনার এডসেন্স এর সিপিসি বৃদ্ধি হবে এবং আপনার আর্নিং আরো অনেকগুনে বেড়ে যাবে।

বিজ্ঞাপন চ্যানেল তৈরিঃ-

বিজ্ঞাপন চ্যানেলও গুরুত্তপুর্ন একটি বিষয়। আপনি যদি একটি বিজ্ঞাপন ইউনিটের জন্য আলাদা করে চ্যানেল তৈরি করবেন।

এতে করে আপনি বুঝতে পারবেন কোন বিজ্ঞাপন ইউনিট থেকে আপনার কেমন আয় হচ্ছে। এতে করে আপনার অনেক লাভ হতে পারে।

তার মধ্যে একটি হলো আপনি যদি আগে থেকে জানতে পারেন কোন এড ইউনিট থেকে কেমন আয় হচ্ছে তখন আপনি ওই এড ইউনিটের সাথে বেশি জোড় দিবেন।

এতে করে আপনার আয় বৃদ্বি হবে।

ইরিলেভেন্ট বিজ্ঞাপনদাতাদের ব্লক করাঃ

রিলেভেন্ট এডস শো হওয়া মানেই হচ্ছে ভালো আর্নিং। অনেক ক্ষেত্রেই কন্টেন্ট কোয়ালিটি সম্পন্ন হওয়া স্বত্তেও অ্যাডসেন্সে ইরিলেভেন্ট এবং কম পে করে এমন এডস সাইটে শো করে।

এতে করে আয় একেবারে কমে যায়। তাছাড়া এডসেন্সে এরকম ফিচার আছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি ইরিলেভেন্ট বিজ্ঞাপনদাতাদের ব্লক করতে পারবেন।

এবং আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ভালো CPC যুক্ত বিজ্ঞাপনদাতাদের এডসকে এলাও করতে পারেন। যাতে করে আপনি ভালো আয় করতে পারবেন।

এটি খুবি কার্যকরী একটা অপশন। Keyword Tools, Spyfu বা KeywordSpy জাতীয় টুল দিয়ে কম পরিমান পরিশোধ করে এমন বিজ্ঞাপনদাতাদের খুঁজে বের করা যায়।

এবং সাইটে প্রদর্শিত পূর্বের এডস গুলো পর্যবেক্ষন করেই আমরা ইরিলেভেন্ট এডভার্টাইজার ডিটেক্ট করতে পারি।

যার জন্য আপনাকে অ্যাডসেন্স ড্যাসবোর্ড থেকে > Allow and block ads > Blocking Options > Advertisers URL গিয়ে ব্লক করতে পারেন।

অন্যান্য বিষয়ঃ

অ্যাডসেন্স থেকে আয় করার গুরুত্তপুর্ন বিষয় হল পেজ ভিউ বাড়ানো, ভিজিটরকে সাইটে বেশি সময় ধরে রাখা।

অর্থাৎ আপনি যতো বেশি সময় ভিজিটর ধরে রাখতে পারবেন ঠিক ততবেশি আপনার আর্নিং বৃদ্ধি পাবে৷ এর জন্য আপনি প্রথমে কমপক্ষে ১০০ টা আর্টিকেল পাবলিশ করুন।

তারপর এক পোষ্টের মধ্যে আরেকটি পোষ্টের লিঙ্ক দিবেন৷ এতে করে ভিজিটররা অনেক সময় আপনার ওয়েবসাইটে থাকবে এবং আপনার আর্নিং বেড়ে যাবে অনেকগুনে।

তাছাড়া আরেকটি বিষয় আপনাকে অবশ্যই মানতে হবে আর তা হলো এডসেন্স এর পলিসি ঠিকমতো মেনে চলা।

কারন অ্যাডসেন্স এর নিয়ম অনুসরন না করলে অচিরেই আপনার অ্যাডসেন্স বাতিল হয়ে যাবে।

এছাড়াও আপনারা ছোট ছোট নিশ বেসড সাইট নিয়ে আগাতে পারেন যার সাফল্যের হার খুব ভালো হয়। তবে গুগলের ই.এম.ডি আপডেট এর ব্যপারে সাবধান হয়ে এগুতে হবে। সংগৃহীত- ফেইসবুক থেকে নেয়া

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

3 thoughts on "এডসেন্স লো cpc. নিয়ে চিন্তিত? সমস্ত সমাধান এই পোস্টের মাধ্যমে!!"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102