মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৩৩ পূর্বাহ্ন

কুড়িগ্রামে তৃতীয় দফায় দীর্ঘ মেয়াদি বন্যার আশঙ্কা

আতাউর রহমান সবুজ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি।।
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
কুড়িগ্রামে তৃতীয় দফায় দীর্ঘ
ছবি: কুড়িগ্রামের বন্যা পরিস্থিতি

কুড়িগ্রামে তৃতীয় দফায় দীর্ঘ মেয়াদি বন্যার আশঙ্কা;

আতাউর রহমান সবুজ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রাম জেলার ভূরুঙ্গামারীতে গত দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে অবিরাম ভারী বর্ষণে ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে দুধকুমার, ফুলকুমার, কালজানী, সংকোশ, গঙ্গাধরসহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

দুধকুমার নদের পানি সোনাহাট সেতু পয়েন্টে বিপদ সীমার অনেক উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী তীরবর্তী গ্রামগুলো ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

এলাকার পুকুর ডুবে গিয়ে ভেসে গেছে মাছ। শত শত হেক্টর জমির ফসল ও আমন ধান পানির নিচে তলিয়ে গেছে। নষ্ট হচ্ছে মরিচ, পটল, ঝিংগা সহ নানা রকম সবজি ক্ষেত। সেই সাথে গো-খাদ্যের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

এছাড়া অতিবর্ষণে বেশকিছু কাঁচা রাস্তা ভেঙ্গে গেছে। এর ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে । ফলে দুর্ভোগে পড়েছেন চরাঞ্চল ও দ্বীপচরের সকল মানুষ।

এছাড়াও উপজেলার শিলখূড়ী ইউনিয়নের উত্তর ধলডাঙ্গা, দক্ষিণ ধলডাঙ্গা, কাজিয়ার চর, চর উত্তর তিলাই, ছাট গোপালপুর ও নামা চর, সদর ইউনিয়নের নলেয়া, কামাত আঙ্গারিয়া, তিলাই ইউনিয়নের দক্ষিণ তিলাই, খোঁচাবাড়ি, দক্ষিণ ছাট গোপালপুর, শালমারা, চরভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ইসলামপুর, পাইকেরছড়া ইউনিয়নের পাইকেরছড়া, পাইকডাঙ্গা,সোনাহাট ব্রীজের পশ্চিম, উত্তর ও দক্ষিনপাড়, ভরতের ছড়া, গনাইর কুটি, বলদিয়া ইউনিয়নের হেলডাঙ্গা, চরবলদিয়া আন্ধারীঝাড় ইউনিয়নের বীর ধাউরারকুঠি, চর বাড়ুইটারি, ধাউরারকুঠি এলাকার হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দী হয়ে পড়েছে। এতে সেখানে তৃতীয় দফায় দীর্ঘ মেয়াদি বন্যার আশঙ্কা করছেন ভূক্ত ভোগীরা।

শিলখুড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইসমাঈল হোসেন ইউসুফ বলেন, আমার ইউনিয়নের ৬টি গ্রাম সম্পূর্ণ প্লাবিত হয়েছে। বিষয়টি ইউএনও মহোদয়কে জানানো হয়েছে।

পাইকেরছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক জানান, আমার ইউনিয়ের পাইকডাঙ্গা গ্রাম সম্পূর্ণ ও ৪টি ওয়ার্ডের বেশকিছু এলাকায় পানি ঢুকে পড়েছে। সরজমিনে ঘুরে দেখে তা উর্ধতন মহলকে জানিয়েছি।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহিনুর আলম জানান, এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন তৈরি করে জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর পাঠানো হয়েছে। আশা রাখি জেলা প্রশাসক মহোদয় খুব দ্রুত করনীয়  নির্দেশ প্রদান করবেন।

উপজেলা নির্বাহী দিপক কুমার দেব শর্মা জানান, সংলিষ্ট এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবহিত করা হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের আগাম প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে।

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102