রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২:৪৭ অপরাহ্ন

ঝালকাঠির তাঁত শিল্প বিলুপ্তির পথে !

আতাউর রহমান, ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি।।
  • আপডেট সময় রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০২০

ঝালকাঠি জেলার তাঁত শিল্প বিলুপ্তির পথে !

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠি জেলার তাঁত শিল্প বিশেষ করে ঝালকাঠির গামছার সুনাম সারা দেশে ছিল। আনুমানিক দেড় থেকে দুইশত বৎসর ধরে ঝালকাঠি জেলা এবং এ জেলাধীন রাজাপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এ শিল্পের সুনাম ছিল। সুতা হল এ শিল্পের প্রধান উপকরণ। তাই সুতার মূল্য বৃদ্ধি ও পর্যাপ্ত সরবরাহ না থাকায় এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত পরিবারগুলো মূলধনের অভাবে তাদের উৎপাদিত পণ্যের চাহিদা থাকা সত্ত্বেও সে চাহিদা পূরণ করতে পারছে না। দিন দিন তারা হারিয়ে যাচ্ছে।

এক সময় ঝালকাঠি শহরের নিকটবর্তী প্রবাহিত বাসন্ডা নদীর পশ্চিম দিকের গ্রামগুলোতে পুরো এলাকা জুড়ে প্রায় ৩৫০/৪০০ তাঁতি পরিবার ছিল। বর্তমানে সামান্য কয়েকটা ঘর ছাড়া প্রায় সবাই অন্য পেশায় যেতে বাধ্য হয়েছে। জীবন ও জীবিকার তাগিদে পেশা পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে।

প্রায় একই সমস্যা ঝালকাঠির রাজাপুরের আলগী, কৈবর্ত্তখালীসহ আঙ্গারিয়ার তাঁতি পরিবারগুলোর। মাত্র ১০ থেকে ১৫ বছর পূর্বেও এই সব পরিবারের মহিলারা বেলভেটের শাড়ী, হাজার বুটি শাড়ী, ঝাপাশাড়ী, এই সব শাড়ী ছাড়াও গামছা, লুঙ্গী, মশারী এমনকি চাদরও তৈরি করত।

তথাকথিত আধুনিকতার ছোঁয়ায় গ্রাম-বাংলা থেকে বিলুপ্তির পথে তাঁত শিল্প।
কালের বিবর্তন ও প্রযুক্তির বিকাশে যে সকল পেশা এখন বিলুপ্ত তার মধ্যে অন্যতম তাঁত শিল্প পেশা। যান্ত্রিকতার ছোয়া লাগায় এ পেশার কদর দিন দিন কমে গেছে। এ কারনেই জীবন ও জীবিকার তাগিদেই সবাই পেশা বদল করেছেন।

আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বিশ্ব এগিয়ে চলেছে। প্রগতি ও প্রযুক্তির যুগে কর্মব্যস্ত মানুষের ব্যস্ততা যেমন বেড়েছে, তেমনি যে কোনো কাজ, অল্প খরচে দ্রুত সম্পন্ন করতে পারলেই মানুষ হাফ ছেড়ে বাঁচে বলে ধারণা জন্মেছে। তাই গ্রাম-গঞ্জেও এখন পুরোপুরি তাঁত শিল্পেও যান্ত্রিকতার ঢেউ লেগেছে।

কালের বিবর্তনে হারিয়ে গেছে তাঁতিদের ছন্দময় মধুর শব্দ।
তিন দশক আগেও মৌসুম ভেদে গ্রামীন সমাজের পথে প্রান্তরে পাওয়া যেত তাঁতিদের হাতে তৈরির শাড়ি, লুঙ্গি, গামছা, মশারী ও চাদর কিন্তু আধুনিকতার ছোঁয়া লাগায় এখন ঝালকাঠির গ্রামগঞ্জ থেকে তাঁত শিল্প পেশাই বিলুপ্ত। তাই এই সম্প্রদায়ের ঐতিহ্য ও স্মৃতি সমূহ সংরক্ষন করা না হলে ভবিষ্যতে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে ঝালকাঠি জেলার তাঁতিরা ।

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102