শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৩:০৮ পূর্বাহ্ন

টাকার বিনিময়ে ভালুকা বনের মালিকানা !

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট, ২০২০
ছবি: সংগৃহীত

একটি কথা প্রচলিত আছে আমাদের দেশে। কথাটা হলো টাকা দিলে নাকি বাঘের দুধও পাওয়া যায়। বাস্তবে টাকা দিয়ে বাঘের দুধ না পাওয়া গেলেও ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলায় অবস্থিত ভালুকা বনের মালিকানা পাওয়া যায়। একটি বিশ্বস্ত সূত্রে খবর নিয়ে জানা গেছে যে ভালুকা বনের প্রায় ১৫ হাজার একরের বেশি বনভূমি বেদখল হয়েছে ভূমি দস্যুদের হাতে। এই কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ খোদ সরকারী বন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে। তাদের সাথে জড়িত আছেন এলাকার কিছু প্রভাবশালী মহল।

ভালুকায় লোকমুখে শুনা যায় ভালুকা বনে নাকি প্রচুর ভালুক ঘুরে বেড়াতো, সেই থেকেই এই বনের নাম ভালুকা বন। স্থানীয়দের মধ্যে এক ব্যক্তি বলেন, ‘ভালুকা বনে বড় বড় বাঘ, বানর ও ভালুক ঘুরে বেড়াতো।’ ভালুকা বনের ২৩ হাজার একর ভূমির মালিক ছিল বাংলাদেশ বনবিভাগ। বর্তমানে যা কমতে কমতে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৮ হাজার একরে। ১৪ বছর আগের স্যাটেলাইট ফুটেজের সঙ্গে বর্তমানের তুলনা করলেই তার সত্যতা পাওয়া যায়।

ভালুকা বন দখলে অনুসরণ করা হয়েছে তিনটি পদ্ধতি। এক ধীরে ধীরে গাছ কেটে বন উজাড়, দুই রাতারাতি দেয়াল তুলে সরাসরি দখল এবং তিন কর্মকর্তাদের হাত করে আইনি প্রক্রিয়ায় দখল। ভালুকা বনে যেখানে সরকারি গাছ কাটায় নিষেধ সেখানে বনের ভেতর স’মিল বসিয়ে কাটা হচ্ছে তাজা গাছ।

স্থানীয়রা বলছেন, টাকা দিলে সবই সম্ভব এখানে। এই অবৈধ কাজে যুক্ত সব পর্যায়ের কর্মকর্তা। ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা দিলেই সব করা যায়। এই টাকার ভাগ নেয় সবাই।

ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হককে এই ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে প্রথমে উনি কিছুই বলতে রাজি হননি। অবশ্য পরে তিনি দাবি করেন অভিযোগ পেলেই নেয়া হয় ব্যবস্থা। নাম প্রকাশে অনচ্ছিুক এক বন কর্মকর্তা বলেন, ‘উইখানে কি বলব কোর্টেও আছে তাদের লোক। অনেক মামলা ওরা খেয়ে ফেলে। আমলে আনতে দেয় না। পেশকারকে ম্যানেজ করে সব নথি ঐখান থেকে উধাও করে দেয়।

বনের এক সাবেক প্রধান বন সংরক্ষক জনাব ইশতিয়াক উদ্দিন আহমেদ বলেন, বনভূমি সংরক্ষণ করতে হলে শক্ত হতে হবে সরকারের সর্বোচ্চ মহলকে এবং কঠোর নজরদারিতে আনতে হবে সবাইকে। দ্রুত বনের সীমানা নির্ধারণেও গুরুত্ব দিতে বলছেন বনবিভাগের এই সাবেক শীর্ষ কর্মকর্তা। সূত্র: সময় টিভি

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102