শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:০৮ পূর্বাহ্ন

ঢাকায় ভাড়া বাড়িতে একটি কঙ্কাল নিয়ে যত রহস্য

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৬ অক্টোবর, ২০২০
ঢাকায় ভাড়াবাড়িতে একটি কঙ্কাল
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকায় ভাড়াবাড়িতে একটি কঙ্কাল নিয়ে যত রহস্য:

ঢাকার শ্যাওড়াপাড়ার বাসিন্দা হানিফ সরকারের দিনটা খুব সাদামাটা ভাবেই শুরু হয়েছিল। কিন্তু সেদিন বিকেলে পিলে চমকে ওঠার মতো এমন এক তথ্য তিনি পেলেন যা কোনদিন কল্পনাও করেননি।

দীর্ঘদিন ধরে তার বাড়িতে পানির লাইন মেরামতের জন্য যে মিস্ত্রি কাজ করেন ফোন কলটি ছিল তার।

“ফোনে মিস্ত্রি আমাকে জানালো স্যার একটু নিচ তলায় আসেন। সে আমাকে ফোনে কথাটা বলতে চায়নি। নিচে যাওয়ার পর যখন সে আমাকে বলল যে স্যার বাথরুমের ফলস ছাদের উপর মনে হয় একটা লাশ পাইছি। আমি বললাম ব্যাটা কি কস, পাগলের কথা।”

কিন্তু তার কথাই সত্য হল। তবে পলিথিন, সিমেন্ট আর কংক্রিট দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় যা পাওয়া গেল তা একটি মানুষের কঙ্কাল।

যার বিভিন্ন অংশ টুকরো হয়ে গেছে অথবা খুলে আলাদা হয়ে গেছে। সিনেমায় এমন দৃশ্য নানা সময় দেখা যায়। পুরনো বাড়ি থেকে বের হয় মরদেহ, কঙ্কাল অথবা মূল্যবান কোন বস্তু।

মি. সরকার বলছেন, “আমার কপালে কঙ্কালটাই জুটল।”

তিনি আরও বললেন যে, “সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময়ে তার নিচতলার ভাড়াটিয়া জানালেন যে বাথরুমে পানি আসছে না। তাই আমি আমার পার্মানেন্ট মিস্ত্রিকে বললাম বিষয়টা দেখতে।

সে কয়েকদিন পরে সেখানে গেল। খুঁজে কোন সমস্যা না পেয়ে সে বাথরুমের উপরে ফলস ছাদে ওঠে। সেখানে পাইপ পরীক্ষা করতে গিয়ে দেয়াল ভাঙতে হয়েছে। সেই সময় বের হয়ে এলা প্লাস্টিকে মোড়ানো কিছু একটা।”

মি. সরকার জানালেন যে, তিনি থানায় গিয়ে পুলিশকে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করেন।

ঘটনার দিন পুলিশের প্রায় সব গুলো বাহিনীর বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যরা সারারাত জুড়ে তার বাড়িতে এসেছে।

পুলিশেল উপস্থিতির পর যখন প্রতিবেশীরা বিষয়টি জানলেন, তখন তারাও ভিড় করতে লাগলেন হানিফ সরকারের বাড়িতে।

মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: মোস্তাজিরুর রহমান বলছেন যে, ‘তার কর্মজীবনে এযাবত কালে এমন রহস্যজনক অভিজ্ঞতা তার হয়নি।’

তিনি বলছেন, “লাশ সংরক্ষণ করার জন্য চা পাতা ব্যবহার করা হয়েছে। তারপর পলিথিন দিয়ে সেটি মোড়ানো হয়েছে এবং সিমেন্ট, বালু, সুরকি দিয়ে সেটিকে চাপা দেয়া অবস্থায় পাওয়া গেছে।”

তিনি আরও বলছেন যে, “আপাতদুষ্টিতে মনে হচ্ছে যে কাজটি করেছে সে এই বিষয়ে বেশ দক্ষ।”

এই কঙ্কালটি নারী না পুরুষের, বয়স কত, কতদিন আগে হত্যাকাণ্ডটি সংগঠিত হয়েছে, অথবা মৃত্যু হয়েছে সেসেব কিছুই এখনো জানা যায়নি।

মো: মোস্তজিরুর রহমান বলছেন যে, “কঙ্কালটি ফরেনসিক ও ডিএনএ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এই পরীক্ষা না করে বিস্তারিত জানা যাবে না।” সূত্র: বিবিসি বাংলা

আরও পড়ুন: অটোরিকশার ধাক্কায় এক ব্যবসায়ী নিহত!!

আরও পড়ুন: তিন তলা বাসার ছাদ থেকে পড়ে এক গৃহকর্মীর মৃত্যু

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102