বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন

নেপালের নতুন মানচিত্রটি গুগলের কাছে পাঠানোর পরিকল্পনা !

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় রবিবার, ২ আগস্ট, ২০২০

ভারতের কিছু এলাকা যুক্ত করে নতুন নেপালের মানচিত্রের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ে এবার রাষ্ট্রপুঞ্জ ও গুগলের শরণাপন্ন হতে চলেছে নেপাল। বিগত কিছু দিন আগে ভারতীয় ভূ-খণ্ড কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধাউরাকে অন্তর্ভুক্ত করে নতুন মানচিত্র তৈরি করে নেপালের কেপি শর্মা অলির সরকার।

কেপি অলির সরকার নেপাল সংসদে উক্ত মানচিত্র পাসও করেন। এবার সেই বিতর্কিত মানচিত্রটিই রাষ্ট্রপুঞ্জ ও গুগলের কাছে পাঠানোর পরিকল্পনা করেছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা উলি। যাতে গুগল সার্চে ওই তিন ভারতীয় ভূখণ্ড নেপালের অংশ হিসেবে চিহ্নিত হয়। শনিবার ১ আগস্ট ২০২০ নেপালি সংবাদমাধ্যমের খবরে অলির এই পরিকল্পনার বিষয়টি সামনে এসেছে।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী পদ্মা আরিয়াল বলেন, আমরা কালাপানি, লিপুলেখ এবং রিম্পিয়াধুরাকে সংযুক্ত করে সংশোধিত মানচিত্র করে খুব শিগ্রই আন্তর্জাতিক সকল গোষ্ঠীর কাছে পাঠাচ্ছি। এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত জানাতে পাশাপাশি ইংরেজিতে একটি বইও ছাপাতে চলেছে নেপাল সরকার, যাতে নেপালের সংশোধিত মানচিত্র থাকবে।

এখানে উল্লেখ্য যে, গত জুনে বিতর্কিত মানচিত্র সংশোধন করার প্রস্তাব নেপালের সংশোধে পাশ হয়। নতুন মানচিত্রে ভারতের তিনটি অংশ কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধাউরা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে, এই এলাকাগুলো পূর্বে নেপালেরই ছিল দাবি করা হয়। ২৭৫ আসন বিশিষ্ট নেপালি সংসদের প্রায় সব সদস্যই এই পরিবর্তনের পক্ষে রায় দিয়েছে। নেপালের এই সংশোধিত মানচিত্রটি নেপালে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ভূমি সম্পদ মন্ত্রী উপস্থাপন করলে, সভায় উপস্থিত মন্ত্রি পরিষদের সদস্যরা তার সমর্থন করেন।

নেপালের প্রধানমন্ত্রী অলি সরকারের এই পদক্ষেপে ভারত ও নেপালের মধ্যে বন্ধত্বে ফাটল ধরতে শুরু করেছে, তার পরেও নেপাল এখনও এই মানচিত্রে অনড়। নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি ভারতের বিরুদ্ধে অবৈধ ভাবে উক্ত এলাকাগুলো দখলের অভিযোগ আনেন এবং জমি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিও জানাই। বিবিসি’র নেপালি সূত্রে খবর যে, ভারতের তরফ থেকে নেওয়া সম্প্রতি তিনটি পদক্ষেপ নেপাল সরকারের এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের পিছনে রয়েছে। গত বছর ভারতীয় সরকার একটি নতুন রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করে যেখানে এই বিতর্কিত ভূমি তিনটি তাদের অংশে অন্তর্ভুক্ত হিসেবে দেখানো হয় এবং গত মার্চের ৮ তারিখ উত্তরাখণ্ডের পিথাউরাগড়-লিপুলেখের মধ্যে একটি লিংক রোডের উদ্বোধন করেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

১৬ হাজার কিলোমিটারের বেশি খোলা সীমান্ত রয়েছে নেপাল ও ভারতের মধ্যে। তার মধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। বিরোধের কেন্দ্রে থাকা ভূখণ্ডগুলোম মধ্যে কালাপারি, লিপুলেখ এবং সুস্তা অন্যতম। দীর্ঘ দিন ধরেই এই ইস্যুতে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে নেপাল ও ভারত। বর্তমান বিতর্কের কেন্দ্রে কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধাউরা এই তিনটি অংশই রয়েছে নেপালের উত্তর পশ্চিমে।

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102