শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৩:১১ পূর্বাহ্ন

প্রীতির “ট্রাজিক” হিরো মায়াঙ্ক আগারওয়াল, সুপার ওভারে জিতল দিল্লি!

অনলাইন ডেস্ক ।।
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

প্রীতির “ট্রাজিক” হিরো মায়াঙ্ক আগারওয়াল,
সুপার ওভারে জিতল দিল্লি;

দুবাইয়ে আইপিএলের দ্বিতীয় ম্যাচটাই ভীষণরকম উত্তেজনা ছড়াল। দিল্লি ক্যাপিটালসের ১৫৭ রান তাড়া করতে গিয়ে ৫৫ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে একরকম ছিটকেই গিয়েছিল বলিউডের বিখ্যাত হিরোইন প্রীতি জিনতার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। কিন্তু এখান থেকেই ঘুরে দাঁড়িয়ে অসম্ভবকে সম্ভব করে ফেলেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল।

একহাতে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে পাঞ্জাবকে জয়ের কাছে নিয়ে যান। শেষ ওভারে জিততে দরকার ছিল ১৩ রান। মার্কাস স্টয়নিসের প্রথম বলেই ছক্কা মারেন মায়াঙ্ক। পরের তিন বলের মধ্যে স্কোর সমান ১৫৭ হয়ে যায়। তখন দুই বলে দরকার ছিল মাত্র ১ রান।

ঠিক এই সময়েই ভুলটা করে বসলেন মায়াঙ্ক। হয়তো ভেবেছিলেন ছক্কা মেরে ম্যাচটা শেষ করবেন। কিন্তু তিনি ক্যাচ দিয়ে বসলেন সীমানার ওপর দাঁড়িয়ে থাকা শিমরণ হেটমায়ারের হাতে।

পরের বল অর্থাৎ ষষ্ঠ বলেও সুযোগ ছিল জেতার। এবার ক্রিস জর্ডান স্নায়ু চাপে ভুগে ক্যাচ তুলে দিলেন কাগিসো রাবাডার হাতে। ম্যাচ টাই।

তীরে এসে ডুবতেই কিনা ভেঙে পড়ল পাঞ্জাব। সুপার ওভারেও তারা একের পর এক আউট হতে লাগলেন। রান উঠল মোটে ৩। এই রান চোখ বুঝেও টপকানো যায়। দিল্লি তা করেছেও। হারা ম্যাচ তারা সুপার ওভারে জিতে নিয়েছে।

এত কাছে এসে ম্যাচ হারার যন্ত্রণা নিশ্চয়ই পোড়াবে মায়াঙ্ক আগারওয়াল। পাঞ্জাবের সবাই যখন ব্যর্থ তখন তিনি একাই লড়ে ম্যাচটা জয়ের খুব কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন। খেলেছেন ৬০ বলে ৮৯ রানের ইনিংস। সাত বাউন্ডারির পাশাপাশি ছক্কা মেরেছেন চারটি। কিন্তু এই ইনিংসটি তো কাজেই এল না। মায়াঙ্ক যেন প্রীতি জিনতার “ট্রাজিক” হিরো হয়ে থাকলেন।

তার আগে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাট করতে গিয়ে দিল্লির শুরুটা হয়েছিল দুঃস্বপ্নের মতো। স্কোরবোর্ডে ১৩ রান উঠতে না উঠতেই ড্রেসিংরুমের রাস্তা ধরেন পৃথ্বী শ (৫), শিখর ধাওয়ান (০) ও ক্যারিবিয়ান শিমরণ হেটমায়ার (৭)।

এখান থেকে দিল্লিকে উদ্ধার করেন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার ও উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্থ। দুজনে মিলে চতুর্থ উইকেটে যোগ করেন ৭৩ রান। খানিকটা হাফ ছেড়ে বাঁচে দিল্লি। ৮৬ রানে তরুণ রবি বিঞ্চোইয়ের বলে প্লেড অন হয়ে যান পন্থ। তার আগে ২৯ বলে চার বাউন্ডারিতে করেন ৩১ রান।

খানিকবাদে শ্রেয়াসও বিদায় নেন ক্রিস জর্ডানের হাতে ক্যাচ দেন। বোলার ছিলেন মোহাম্মদ শামি। শ্রেয়াস ৩২ বলে তিন ছক্কার সৌজন্যে ৩৯ রান করে দিয়ে যান। এরপর যা করার একাই করেছেন অস্ট্রেলিয়ান মার্কাস স্টয়নিস।

তিনি পাঞ্জাবের বোলারদের কচুকাটা করেন। মাত্র ২০ বলে ফিফটি তুলে নিয়ে ২১ বল খেলে ৫৩ রান করে রান আউট হন। সাত বাউন্ডারির বিপরীতে ছক্কা মেরেছেন তিনটি। মোহাম্মদ শামি ১৫ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সূত্রঃ স/জার্নল ।

আরও পড়ুনঃ হায়দরাবাদকে হারিয়ে কোহলির আইপিএল অভিযান শুরু

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102