শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বুদ্ধি-প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ, ধর্ষক মামা আটক!!

মো. আজহার উদ্দিন, স্টাফ রিপোর্টার ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।
  • আপডেট সময় শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বুদ্ধি-প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ, ধর্ষক মামা আটক:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে এক বুদ্ধী প্রতিবন্ধি কিশোরীকে (১২) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল শুক্রবার (৯ই অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে আড়াইসিধা ইউনিয়নের পাঁচবিটা গ্রামে বাড়ির পেছনের জংগলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

ঘটনার পর থেকেই সাবেক স্থানীয় ইউপি সদস্য বিষয়টি মিমাংসা করতে কিশোরীর পরিবারকে চাপ দিচ্ছে। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে অভিযুক্ত ধর্ষক দেলোয়ার মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ।

দেলোয়ার পাচঁবিটা গ্রামের মলাই মিয়ার ছেলে। সম্পর্কে দেলোয়ার কিশোরীর চাচাতো মামা।

কিশোরীর পরিবার জানান, কিশোরী বাড়ি আশুগঞ্জ উপজেলার তালশহর গ্রামে। কিন্তু র্দীঘদিন যাবত সে নানা বাড়িতে বসবাস করতে ছিল।

গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে ওই কিশোরীকে দিয়ে তার চাচাতো ভাই মানিক মিয়ার স্ত্রী মিনা বেগমের বাড়িতে তরকারি দিয়ে পাঠায়।

কিন্তু বেশ কতক্ষণ পরেও ওই কিশোরী ঘরে ফিরে না আসায় তিনি খুঁজতে বের হন।

এই সময় মানিক মিয়ার বাড়ির পিছনে জংগলের কাছে তার প্রতিবন্ধী মেয়ের গলার আওয়াজ শুনতে পায়। টর্চের আলো জ্বালালে অভিযুক্ত দেলোয়ার দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

পরে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসা হলে মেয়ে তাকে ইশারা ইংগিতে জানায়, তরকারি দিয়ে ঘরে ফেরার পথে অভিযুক্ত দেলোয়ার তাকে জাপটে ধরে নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে।

বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য বাচ্চু মিয়া ও মুরব্বী আবুল কালাম, ধর্ষক দেলোয়ারের বাবা মলাই মিয়া মিলে রাতেই বিষয়টি ধামাচাপা দিতে শালিশ বৈঠকে বসে এবং মিমাংসা করার জন্য চাপ দেয়। কিন্তু কিশোর পরিবার মিমাংসা করতে রাজি না হওয়ায় চাপ দিতে থাকে।

শনিবার সকালে কিশোরীর পরিবার কিশোরীকে নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে আশুগঞ্জ থানা পুলিশ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে তাৎক্ষনিক পুলিশ কিশোরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসাপাতালে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছে এবং অভিযুক্ত ধর্ষক দেলোয়ারকে আটক করেছে পুলিশ।

এই ব্যাপারে আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. তামান্না হক বলেন, ভিকটিমের প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে জেলা সরকারি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রার্প্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদ মাহমুদ জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ধর্ষক দেলোয়ারকে পাঁচবিটা তার বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে কিশোরীর পরিবারকে মামলা দায়ের জন্য বলা হয়েছে। তবে এ ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য যারা চাপ দিয়েছে অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুনঃ নলছিটিতে যুবতীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ!

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102