শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০২:০১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ:
ইয়েমেনে অপুষ্টিতে লাখো শিশু মৃত্যু ঝুঁকিতে বাংলাদেশ এবং তুরস্কের সম্পর্ক আত্মিক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাশ্মিরিদের ঘরে বন্দী রেখেই এবার ভারতীয়দের জমি কেনার অনুমতি দিলেন মোদি ঢাকায় ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে বিশাল মিছিল, দূতাবাস ঘেরাও আটকাল পুলিশ ম্যাক্রোঁকে সমর্থন করছে ভারতীয়রা আগাম ভোটের সংখ্যা ১০ কোটিতে পৌঁছাতে পারে যুক্তরাষ্ট্রে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত সামরিক চুক্তি আঞ্চলিক শান্তির প্রতি হুমকি: পাকিস্তানের হুঁশিয়ারি ৩১ বাংলাদেশীসহ ৩৮ অবৈধ অভিবাসী আটক মালয়েশিয়ায় মালয়েশিয়ায় জরুরি অবস্থা জারির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান রাজার বাসা থেকে ডেকে নিয়ে এক কিশোরকে হত্যার অভিযোগ

‘মরিচা’ পড়ছে চাঁদে

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

চাঁদের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক সেই আদিকালের। জ্যোৎস্নাভরা রাত কিংবা রুপালি চাঁদের মুগ্ধতা খুঁজে পাওয়া যাবে বিভিন্ন দেশের কবি-সাহিত্যিকের সৃষ্টিতে। বিজ্ঞানীরাও বসে নেই। পৃথিবীর একমাত্র এই উপগ্রহ সম্পর্কে আরও জানতে এবং জানাতে তাঁরা প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন। তারাই বলছেন, ‘আমাদের চিরচেনা রুপালি এই চাঁদ আর রুপালি থাকছে না। দিনে দিনে এর রং এমনভাবে বদলে যাচ্ছে, যেন মনে হবে চাঁদে মরিচা পড়ছে।’

আরও পড়ুন: সার্চ ইঞ্জিন নিয়ে অ্যাপল-গুগল টক্কর

চাঁদে ‘মরিচা’ পড়া সংক্রান্ত একটি গবেষণা নিবন্ধ এরই মধ্যে প্রস্তুত হয়েছে। ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার (আইএসআরও) মহাকাশযান (চন্দ্রযান-১)-এর পাঠানো তথ্য এবং উপাত্ত বিশ্লেষণ করে নিবন্ধটি রচনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব হাওয়াইয়ের একদল গবেষক। শিগগিরই এটি বিজ্ঞানবিষয়ক সাময়িকী সায়েন্স অ্যাডভান্সেস-এ প্রকাশ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এখানে উল্লেখ্য যে, চন্দ্রযান-১ মূলত চাঁদের মেরু এলাকা পর্যবেক্ষণ করে তথ্য পাঠিয়েছিলেন। সে তথ্য বিশ্লেষণ করতে গিয়েই গবেষকরা জানতে পারেন, চাঁদের ওই এলাকা থেকে প্রতিফলিত আলোর ধরন অন্য এলাকাগুলোর আলোর তুলনায় ভিন্ন। সেখানে তাঁরা বর্ণালিতে মরিচার মতো কিছু একটার প্রভাব খঁজে পান।

আরও পড়ুন: টিকটককে কিনতে মাইক্রোসফটের সঙ্গে জোট বাঁধতে চায় ওয়ালমার্ট

লোহার অক্সাইডের একটি ধরন হলো মরিচা। লোহার মরিচা পড়তে হলে অবশ্যই তাকে অক্সিজেনের সংস্পর্শে থাকতে হবে। কিন্তু চাঁদের বায়ুমণ্ডল নেই। কাজেই সেখানে অক্সিজেন থাকার প্রশ্নই আসে না। ঠিক এই বিষয়টিই ভাবাচ্ছেন বিজ্ঞানীদের। ইউনিভার্সিটি অব হাওয়াইয়ের গবেষক দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন শুয়াই লি। তার মতে, চাঁদের যে পরিবেশ, তাতে সেখানে মরিচা পড়ার কোনো সুযোগই নেই।

আরও পড়ুন: মহাকাশে পর্যটন শিগগিরই

বিজ্ঞানীরা বলছেন, চাঁদের নিজস্ব বায়ুমণ্ডল না থাকলেও পৃথিবীর চুম্বকক্ষেত্রের প্রভাবে সেখানে খুব সামান্য পরিমাণে অক্সিজেন থাকলেও থাকতে পারে। পৃথিবীর চুম্বকক্ষেত্রের প্রভাবেই এখান থেকে অক্সিজেন প্রায় ৩ লাখ ৮৫ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে চাঁদ পর্যন্ত পৌঁছে থাকতে পারে। শত শত বছর ধরে চলা এই প্রক্রিয়ার কারণেই চাঁদে খনিজ উপাদান হিসেবে থাকা লোহার মরিচা পড়ে থাকতে পারে। আরেকটি সম্ভাব্য কারণ হতে পারে চাঁদে বরফের উপস্থিতি। চাঁদের দূরপৃষ্ঠের গর্তে বরফের খোঁজ পাওয়া গেছে। এই বরফ থেকে কোনোভাবে অক্সিজেন অবমুক্ত হয়ে লোহার মরিচা তৈরি করছে। তবে এসব সম্ভাব্য কারণে সন্তুষ্ট নন বিজ্ঞানীরা। তাঁরা প্রকৃত কারণ জানতে চান। আর তাই জোরেশোরে শুরু হয়েছে চাঁদে মরিচা পড়ার কারণ অনুসন্ধান। সূত্র: প্রআ

আরও পড়ুন: মিলিয়ে যাচ্ছে শনির বলয়

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

One thought on "‘মরিচা’ পড়ছে চাঁদে"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102