মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০২:৫৮ অপরাহ্ন

মর্মান্তিক সত্য কি উদঘাটন হবে?

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় রবিবার, ২ আগস্ট, ২০২০

আমাদের দেশে শেষ পর্যন্ত সেনাবাহিনীর সাথেও পুলিশের তথাকথিত বন্ধুকযুদ্ধ হলো যার পরিণতিতে ঝড়ে গেল একটি তরতাজা দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর মেজর এর প্রান ।

একজন সাবেক সেনাকর্মকর্তা তথা এসএসএফ এর একজন মেজর, যিনি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন, তার প্রশিক্ষণ এতো দুর্বল নয় যে, তার হাতে পিস্তল থাকার পরেও তার পিস্তল থেকে গুলি বের হবার আগেই পুলিশের পিস্তল থেকে গুলি বের হবে।

তার পদমর্যাদার একজন ব্যক্তি কোন ঝামেলা হলে চেকপোস্টে দায়িত্বরত কোন এএসআইয়ের (ASI) সাথে তর্ক জড়ানোর কথা নয়, কোন ঝামেলা হলে নিশ্চয়ই  তার উপর মহলে যোগাযোগ করার কথা। কিন্তু কেন তিনি তা না করে একজন এসআইয়ের সাথে তর্কে জড়ালেন? কথাটা কতোটুকুই সত্য তা বুঝার জন্য আলাদা বুদ্ধি খাটানোর কি কোন দরকার আছে।

পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়া মেজরের ব্যাপারে সেনাসদরের বক্তব্য:
“ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অনভিপ্রেত: সেনাসদর
এ ঘটনাকে অত্যন্ত দুঃখজনক ও অনভিপ্রেত জানিয়ে সেনাসদর বলছে যে, মেজর (অব.) সিনহা গাড়ি থামিয়ে তাদের পরিচয় দিলে প্রথমে তাদের যাওয়ার জন্য সংকেত দিলেও এএসআই লিয়াকত তাদের পুনরায় থামায় এবং তাদের দিকে পিস্তল লক্ষ্য করে গাড়ি থেকে নামতে বলে। মেজর সিনহা হাত উঁচু করে গাড়ি থেকে নামার পরপরই এএসআই লিয়াকত তাকে লক্ষ্য করে তিন রাউন্ড গুলি করে। জানা যায় যে, এএসআই লিয়াকত কোনরূপ কথাবার্তা না বলেই গাড়ি থেকে নামার পরপরই মেজর সিনহাকে লক্ষ্য করে গুলি করে ছুুুড়ে।”

এ থেকে সহজে অনুমান করা যায় যে, মেজর রাশেদ কোন তর্কে জড়ায় নি, তার কাছে কোন মাদক ছিলো না। ঠান্ডা মাথায় তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তার হত্যাকে ভিন্নখাতে নিতে পুলিশের পক্ষে থেকে মাদক সংশ্লিষ্টতার কথা বলা হচ্ছে। এবিষয়ে সেনা সদরের বক্তব্য, ‘‘সামরিক পোশাক পরিহিত থাকা অবস্থায় মেজর (অব.) গুলি করার পরই তার বিরুদ্ধে মাদক সংশ্লিষ্ট অভিযোগ উত্থাপনের ঘটনাটিকে অন্য খাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা বলে অনুমেয়।”

এই ঘটনায় সেনাসদর যৌথ তদন্ত দল করতে দাবি করেছে (সেনাবাহিনী ও পুলিশের সমন্বয়ে তদন্ত দল)।  আমরাও সেনাবাহিনীরর দাবির সাথে একমত। মেজর রাশেদের হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত করতে হবে, ঘটনার পূঙ্খানুপুঙ্খ জনগণকে জানাতে হবে, সর্বোপরি দোষীদের কঠোর শাস্তি প্রদান করতে হবে।

সূত্রঃঃ মুহাম্মদ রাশেদ খান এর টাইমলাইন থেকে নেয়া…..

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102