শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:০৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ:
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট যেসব সুবিধা পান বাস ও সিএনজি অটোরিকশা সংঘর্ষে এক শিশু নিহত, আহত ৫ ছোট ভাইয়ের জানাজার পর বড় ভাইয়ের মৃত্যু নাগোর্নো-কারাবাখের শেষ প্রদেশেও প্রবেশ করেছে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নতুন ১২ জন আক্রান্ত, জেলায় ২৬৫৬ জন শনাক্ত কাশ্মীর ইস্যুতে আবারও উত্তপ্ত ভারত-পাকিস্তান দলীয় মনোনয়নের আবেদন ফরম সংগ্রহ করলেন সাবেক মেয়র হেলাল উদ্দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চাচাকে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন একটি স্বাধীন, সুসংহত ও টেকসই ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পক্ষে বাংলাদেশ ওআইসি বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে যৌথ প্রস্তাব গ্রহণ করেছে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ মুসলিম দেশগুলো

রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়টি দাতাদের স্বীকারের আহ্বান

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০
রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়টি দাতাদের
ছবি: সংগৃহীত

রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়টি দাতাদের স্বীকারের আহ্বান:

রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়টি দাতাদের স্বীকারের আহ্বান জানিয়েছেন মানবাধিকার সংগঠন ফর্টিফাই রাইটস।

রোহিঙ্গাদের জন্য প্রয়োজনীয় এক বিলিয়ন অর্থ জোগাড় করে দিচ্ছেন এমন দাতা দেশগুলোর মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধ ও গণহত্যার বিষয়টি স্বীকার করা উচিত বলে মনে করে মানবাধিকার সংগঠন ফর্টিফাই রাইটস।

রোহিঙ্গা শরণার্থী ও আশ্রয়দাতা দেশগুলোর সহায়তার জন্য বৃহস্পতিবার এ দাতা সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য ও জাতিসঙ্ঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)।

ফর্টিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী অফিসার ম্যাথু স্মিথ বলেন, ‘গণহত্যাই হলো মানবিক প্রয়োজনের মূল কারণ এবং দাতা সরকারগুলোর এ বিষয়টি স্বীকার করা উচিত।’
‘আমরা যদি কখনো গণহত্যামুক্ত পৃথিবীতে বেঁচে থাকার আশা করি, তবে এর কারণ উদঘাটন করতে হবে। অপরাধগুলোর কারণ অনুসন্ধানে ব্যর্থতা বছরের পর বছর ধরে এমন বার্ষিক অর্থ সরবরাহের সম্মেলন করে যেতে হবে,’ বলেন তিনি।

চলতি সপ্তাহে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে এক যৌথ চিঠিতে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের বিষয়ে মার্কিন সরকারকে গণহত্যা নির্ধারণের আহ্বান জানিয়েছে ফর্টিফাই রাইটস রিফিউজি ইন্টারন্যাশনাল এবং অন্যান্য ৩৩টি সংস্থা।

চিঠিতে বলা হয়, গণহত্যায় দৃঢ়সংকল্প মিয়ানমার যাতে আরো নৃশংসতা করা থেকে বিরত থাকে এবং শেষ পর্যন্ত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিরাপদ, স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের পরিস্থিতি তৈরি করে তা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের বহুপাক্ষিক কূটনৈতিক ব্যস্ততা ও চাপ জোরদার করার জন্য জরুরি পদক্ষেপ নেয়া দরকার।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি ‘বাস্তবিক ব্যবস্থা’ সম্পর্কিত এক নথিতে স্বাক্ষর করে বাংলাদেশ এবং মিয়ানমার, যার মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়া হবে বলে মনে করা হয়েছিল।

পরবর্তীতে ওই বছরের (২০১৮) নভেম্বরে ও ২০১৯ সালের আগস্টে দুই দফায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তার আগে ২০১৭ সালের ২৩ নভেম্বর প্রত্যাবাসন চুক্তিতে স্বাক্ষর করে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। সূত্র: ইউএনবি।

আরও পড়ুন: ফ্রি ইন্টারনেটের অভিনব অফার

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

2 thoughts on "রোহিঙ্গা গণহত্যার বিষয়টি দাতাদের স্বীকারের আহ্বান"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102