শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:২২ পূর্বাহ্ন

সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকার নির্দেশ চীনা প্রেসিডেন্টের

অনলাইন ডেস্ক ।।
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত
ছবি; সংগৃহীত

সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকার নির্দেশ চীনা প্রেসিডেন্টের:

সীমান্ত নিয়ে ভারতের সাথে সৃষ্ট উত্তেজনার মধ্যেই যুদ্ধের জন্য সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

চীনা প্রেসিডেন্ট চাওঝৌতে অবস্থিত পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) মেরিন কোর পরিদর্শনকালে ১৩ অক্টোবর এমন মন্তব্য করেন।

একই সাথে তিনি সেনাবাহিনীকে বলেছেন, তাদের মনমানসিকতা ঠিক রাখতে এবং যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে। এ সময় তাদেরকে ‘নির্ভেজাল অনুগত, নিরেট খাঁটি এবং অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য’ হওয়ার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, শেনঝেন স্পেশাল ইকোনমিক জোনের ৪০তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে গত বুধবার গুয়াংঝো সফর করে সেখানে বক্তব্য রাখেন চীনা প্রেসিডেন্ট। ওই ইকোনমিক জোন প্রতিষ্ঠা করা হয় ১৯৮০ সালে।

বিশ্বে অর্থনীতিতে চীনকে দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ অর্থনীতির দেশ হয়ে উঠতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে শেনঝেন স্পেশাল ইকোনমিক জোন।

পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় (এলএসি) চীন ও ভারতের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ বিরাজমান। সম্প্রতি উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে সেখানে। এরই প্রেক্ষাপটে শি জিনপিং তার সেনাদের প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানালেন।

ওদিকে সীমান্ত উত্তেজনার সমাধানের জন্য দুই দেশ প্রায় ১১ ঘণ্টা বৈঠক করে। এরপর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তত তাড়াতাড়ি এ সমস্যার গ্রহণযোগ্য সমাধানে গত মঙ্গলবার একমত হয় ভারত ও চীন।

১২ অক্টোবর স্থানীয় সময় সাড়ে ১১টায় এ সমস্যা নিয়ে এলএসিতে ৭তম কোর কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক হয় এই দু’দেশের।

এরপর যৌথ বিবৃতি দেয়া হয়। তাতে বলা হয়, উভয়পক্ষ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পারস্পরিক গ্রহণযোগ্য একটি সমাধানে পৌঁছার জন্য সামারিক ও কূটনৈতিক চ্যানেলগুলোর মধ্যে আলোচনা ও যোগাযোগ স্থাপনে সম্মত হয়েছে।

মতভেদ নিয়ে বিভক্ত হওয়ার পরিবর্তে দুই দেশের নেতাদের মধ্যে সমঝোতা যত দ্রুত সম্ভব বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব দিতে রাজি হয়েছে দুই দেশ। এর মধ্য দিয়ে সীমান্ত এলাকায় শান্তি রক্ষায় রাজি হয়েছে তারা।

এতে আরো বলা হয়, চুশুলে চীন ও ভারতের মধ্যে সিনিয়র কমান্ডার পর্যায়ের সপ্তম দফা আলোচনা হয় ১২ অক্টোবর। দু’পক্ষই ছিল আন্তরিক। তারা সমস্যার গভীরে গিয়ে আলোচনা করেছেন।

এ ছাড়া ভারত-চীন সীমান্তের ওয়েস্টার্ন সেক্টরে সীমান্ত এলাকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর সমস্যা নিয়ে তারা গঠনমুলক দৃষ্টিভঙ্গি বিনিময় করেছেন। এতে আলোচনা ছিল ইতিবাচক, গঠনমূলক এবং একে অন্যের আশ্বস্ত হওয়ার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে।

এর এক দিন পরেই লাদাখ এবং অরুণাচল প্রদেশের কয়েকটি সেতু উদ্বোধন করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এর আগে চীন বলেছে, সীমান্ত বরাবর অবকাঠামো গড়ে তোলার গতি বাড়িয়েছে ভারত। একই সাথে তারা সীমান্তে সেনা মোতায়েন করছে। দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির জন্য ভারতকে দায়ী করেছে চীন।

পশ্চিমাঞ্চল, উত্তরাঞ্চল এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় স্পর্শকাতর এলাকা গুলোতে সড়ক ও সেতু উদ্বোধন করে সংযুক্তির নতুন যুগের সূচনা করেছেন রাজনাথ সিং। সূত্র- সিএনএন।

আরও পড়ুন: জরুরি অবস্থা অগ্রাহ্য করে থাইল্যান্ডে রাজতন্ত্রবিরোধী বিক্ষোভ

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102