শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৪:০১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শোবার ঘর থেকে গলিত লাশ উদ্ধার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্মাণাধীন তিন তলার ছাদ থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত রাজধানীর গুলশানের নর্দা এলাকায় কাভার্টব্যানের পত্রিকার হকার নিহত স্বর্ণের মতো চার ক্যাটাগরিতে বি‌ক্রি হবে রূপা হযরত মুসা (আ:)-এর স্মৃতি বিজরিত সেই কূপ ও বাড়ি এখনো টিকে আছে সৌদি আরবে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর আকাশ প্রতিরক্ষা অনুশীলন অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সসহ সদর উপজেলায় ১২ জন শনাক্ত যুক্তরাষ্ট্রের কোলে আশ্রয় নিতে ছুটছে ভারত, পাল্টা ব্যবস্থা নিচ্ছে চীন বিশ্বকে অবশ্যই ‘গণতান্ত্রিক’ মিয়ানমারের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে বাড্ডায় জবাই করা যুবকের মরদেহ উদ্ধার

২৮ বছর পর নিজেদের ভূমিতে ফেরার স্বপ্নে বিভোর আজেরিরা

অনলাইন ডেস্ক।।
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০

২৮ বছর পর নিজেদের ভূমিতে ফেরার স্বপ্নে বিভোর আজেরিরাঃ

ছয় সপ্তাহের চলা যুদ্ধে আর্মেনিয়ার দখল থেকে কারাবাখের দ্বিতীয় বৃহত্ততম শহর মুক্ত করেছে আজারবাইজানি সেনাবাহিনী। দখলমুক্ত সেই পৈত্রিক ভূমিতে ২৮ বছর পর ফেরার স্বপ্নে বিভোর আজারবাইজানিরা। ১০ নভেম্বর রাশিয়ার সঙ্গে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের শান্তি চুক্তি হয়। এরপরই নিজেদের ভূমিতে বাকুর নাগরিকদের ফিরতে সময়ের ব্যাপার বলে জানাচ্ছে গণমাধ্যমগুলো।

তুর্কি সংবাদ মাধ্যম ইয়েনি শাফাক জানিয়েছে, আপার কারাবাখের শুশা শহরটি ভৌগলিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের স্বীকৃত হলেও এর রক্তাক্ত ইতিহাস রয়েছে।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানের গিলগিট বাল্টিস্তানে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে পিটিআই

১৯৯২ সালে নাগোরনো-কারাবাখ যুদ্ধে হাজার হাজার আজারবাইজানি তাদের বসিত হারিয়েছিল। সে সময় জাতিগত আর্মেনীয়রা শুশা শহরটি দখল করে নেয়। যদিও চুক্তির পর আর্মেনীয়রা এই শহরটি ছেড়ে যাচ্ছে। তবে যাওয়ার আগে তাদের বসতিতে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে; যাতে আজারবাইজানিরা আগের বাসস্থান ব্যবহার করতে না পারে।

হ্যামলেট মেহেরেমোভ ১৯৯২ সালে শুশা শহরে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর তার স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে পালিয়ে যান। এখন তার নাতি-নাতনি নিয়ে তার পারিবারিক বাসস্থানে ফিরতে সময়ের ব্যাপার বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমার কাছে, শুশা আজারবাইজানের। তার স্ত্রী সুগায়েত মেদেতোবা বলেন, তিনি কখনোই ফিরে যাওয়ার আশা ছাড়েননি। আমি এমন মুহূর্ত আমার স্বপ্নে বহুবার দেখেছি।

গত কয়েক সপ্তাহের যুদ্ধে আর্মেনীয়ার দখল থেকে প্রায় ৩০০টি বসটি ও গ্রাম মুক্ত করেছে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী।

২৭ সেপ্টেম্বর থেকে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে নতুন করে সংঘাত শুরু হয়। এর আগে ৯০ এর দশকে সাবেক দুই সোভিয়েত ইউনিয়নের দুই দেশের মধ্যে সংঘর্ষে ৩০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছিল।

নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে ছয় সপ্তাহের বেশি চলা যুদ্ধ বন্ধে ১০ নভেম্বর আর্মেনিয়া, আজারবাইজান ও রাশিয়ার মধ্যে চুক্তি হয়। চুক্তির অনুযায়ী নাগোরনো-কারাবাখ ও আর্মেনিয়া-আজারবাইজান করিডোরে দায়িত্ব পালন করবে রাশিয়ান শান্তিরক্ষীরা।

মোট ১৯৬০ রাশিয়ান শান্তিরক্ষী মোতায়েন করা হবে বিরোধীয় অঞ্চলটিতে। পাঁচ বছর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন তারা।

এদিকে আজারবাইজানের ভূখণ্ড কারাবাখে নিজেদের সেনা মোতায়েনে মঙ্গলবার পার্লামেন্টে মোসন উত্থাপন করছে প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সরকার। এদিন সংসদে ভোটাভুটিতে পাস হলে এক বছরের জন্য তুর্কি শান্তিরক্ষী মোতায়েন হবে কারাবাখে। সূত্র: ইয়েনি শাফাক।

আরও পড়ুন: নয়াদিল্লিকে সতর্কবার্তা দিয়েছে ইসলামাবাদ; যুদ্ধে জড়াচ্ছে ভারত-পাকিস্তান

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

2 thoughts on "২৮ বছর পর নিজেদের ভূমিতে ফেরার স্বপ্নে বিভোর আজেরিরা"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এইরকম আরো খবর দেখুন

© All rights reserved © 2020- SottoSamachar.Com || মানুষের সাথে, মানুষের পাশে।

Search Results

Web result with site link

Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesba-lates1749691102